বৃহস্পতিবার, ১৮ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩রা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আজ বৃহস্পতিবার | ১৮ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

রূপগঞ্জে সাংবাদিকের উপর সন্ত্রাসী হামলা

রবিবার, ১৪ জানুয়ারি ২০২৪ | ৩:৩৩ অপরাহ্ণ

রূপগঞ্জে সাংবাদিকের উপর সন্ত্রাসী হামলা

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার দৈনিক আজকালের খবর পত্রিকা প্রতিনিধি মোঃ আবু কাউসারের উপর শনিবার (১৩ জানুয়ারী) বিকেল ৫ ঘটিকায় খিলক্ষেত থানার পাতিরা গ্রামে হামলা করে ভূমিদস্যু সন্ত্রাসী মাহাবুর রহমান খান, তার দুই সন্ত্রাসী ছেলে রিয়াদ খান ও রানা খান।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত দুই তিন বছর যাবত ভূমিদস্যু মাহাবুর রহমান, জাল দলিল তৈরী করে আবু কাউসারের স্ত্রী খাদিজার পরিবারের খিলক্ষেত থানার পাতিরা গ্রামের নির্মানাধীন ৪ তলা বাড়ি দখল করে নেয়ার জন্য বিভিন্ন ভাবে পায়তারা করে আসছে। ২০০৩ সালে জমিটি মাহাবুর নিজে দলিলে সিনাক্ত স্বাক্ষী হয়ে তার আপন চাচা মতিউর রহমানের কাছ থেকে খাদিজার বড় ভাই সেলিম ভুইয়াকে উক্ত জমি কিনে দেয়। ২০ বছর যাবত চারতলা বাড়ী করে তারা শান্তিতে বসবাস করে আসছে। ২০১৬ সালে খাদিজার একমাত্র ভাইয়ের মৃত্যুর পর তার বাবা, মা ও সেলিম ভূইয়ার স্ত্রী মালিক হয়ে, খাদিজাসহ তিন বোনকে বাড়ি রেজিষ্ট্রেশন করে দেয়। সাম্প্রতি বাড়ীতে থাকা ভাড়াটিয়াদের বাড়ি ছেড়ে দিতেও বিভিন্নভাবে হুমকী ও ভয় দেখাচ্ছে সন্ত্রাসী মাহাবুর। উক্ত বাড়ী ও জমির বিষয় নিয়ে খিলক্ষেত থানায় ও ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে একাধিক মামলা করা হয়েছে। গত ২০শে ডিসেম্বর খুব ভোরে ভূমিদস্যু মাহাবুর রহমান তার কিছু সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে ২০ বছর পূর্বে বাড়ির সমনে লাগানো বেশ কিছু কাঠ ও ফলের গাছ কেটে ফেলে। প্রতিবাদ করলে মাহাবুর ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী খাদিজার বাবা মোজাম্মেল ভূইয়াকে মারতে আসে। নিরুপায় হয়ে স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিদের জানালে তারা শনিবার বিকেলে সামাজিক বৈঠকে বসেন। বৈঠকে গাছ কাটার ব্যাপারে আবু কাউসার আলোচনা উঠালেই মাহাবুর ক্ষিপ্ত হয়ে যায় পরে গন্যমান্য ব্যাক্তিদের সামনে সঠিক কাগজপত্র উপস্থাপন করতে না পেরে হট্রগোল পাকিয়ে বৈঠক পন্ড করে দেয়। স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিদের বিদায় দিয়ে বাড়ির সামনে আসলেই একা পেয়ে মাহাবুর ও তার দুই সন্ত্রাসী ছেলে রিয়াদ ও রানার হাতে থাকা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মোঃ আবু কাউসারের উপর অতর্কিত হামলা চালায়, এতে বাম চোখের নিচে সজোরে আঘাত করলে রক্তাক্ত জখমসহ, শরীরের বিভিন্ন স্থানে লাঠির আঘাতে লিলাফুলা জখম হয়। আবু কাউসারের ডাক চিৎকারে পরিবার ও স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এলে সন্ত্রাসীরা প্রান নাশের হুমকী দিয়ে পালিয়ে যায়।
পরে স্থানীয় সরকারী কুর্মিটোলা মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে রাতে খিলক্ষেত থানায় সাধারণ ডায়েরী করে।
এ ব্যাপারে খিলক্ষেত থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ আমিনুল বাশার পিপিএম বলেন, আমরা এ সন্ত্রাসী হামলার ব্যাপারে অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত সাপেক্ষে সন্ত্রাসীদের আইনের আওতায় আনা হবে।




সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  

ফেসবুকে যুক্ত থাকুন