বুধবার, ২৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আজ বুধবার | ২৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

মহান মে দিবস উপলক্ষে তিতাস গ্যাস কর্মচারী ইউনিয়নের নানা কর্মসূচি পালন।

বুধবার, ০১ মে ২০২৪ | ৮:৩৭ অপরাহ্ণ

মহান মে দিবস উপলক্ষে তিতাস গ্যাস কর্মচারী ইউনিয়নের নানা কর্মসূচি পালন।

নাজমুল হাসানঃ

মহান মে দিবস উপলক্ষ্যে তিতাস গ্যাসের সকল কর্মচারীদের আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন তিতাস গ্যাস কর্মচারী ইউনিয়ন সিবিএ রেজিঃ নং (বি১১৯৩)এর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এ.কে.এম কামাল উদ্দিন এবং সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আয়েজ উদ্দিন আহমেদ ।
এক যুক্ত বিবৃতিতে তিতাস গ্যাস কর্মচারী ইউনিয়ন সিবিএ,র সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বলেন,
‘আজ মহান মে দিবস’ “বিশ্বের শ্রমজীবী ও মেহনতি মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার গৌরবোজ্জ্বল ত্যাগের ঐতিহাসিক দিন ‘মহান মে দিবস-২০২৪’ উপলক্ষ্যে
তিতাস গ্যাসের সকল কর্মচারীদের জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য ‘শ্রমিক-মালিক গড়বো দেশ, স্মার্ট হবে বাংলাদেশ’ যথার্থ হয়েছে বলে মনে করি।”
দিবসটি উপলক্ষে তিতাস গ্যাস কর্মচারী ইউনিয়ন সিবি এর পক্ষ থেকে নানা কর্মসূচি গৃহীত হয়েছে। সারা দেশ থেকে কোম্পানির সর্বস্তরের কর্মচারীদের অংশগ্রহণে রাজধানীর চীন মৈত্রী সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত শ্রমিক সমাবেশে দলে দলে যোগদান করা হয়।
এ দিবস উপলক্ষে বুধবার বেলা ১১টায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় আলোচনা সভার আয়োজন করেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন শ্রম ও কর্মসস্থান মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

১৮৮৬ সালের পহেলা মে যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো শহরে রক্তাক্ত আন্দোলনে শ্রমিকের ন্যায্য দাবি আদায়ের লক্ষ্যে আত্মাহুতি দেওয়া বীর শ্রমিকদের প্রতিও শ্রদ্ধা নিবেদন করেন তারা।
সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আজীবন শোষিত, বঞ্চিত ও শ্রমজীবী মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য সংগ্রাম করেছেন উল্লেখ করে সিবিএ,র সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বলেন, শোষণহীন সমাজ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে তিনি ১৯৭২ সালে জাতীয় শ্রম নীতি প্রণয়ন করেন এবং প্রথম মহান মে দিবসকে শ্রমিক সংহতি দিবস হিসেবে রাষ্ট্রীয়ভাবে পালনের স্বীকৃতি দিয়েছিলেন। জাতির পিতা মে দিবসে সরকারি ছুটি ঘোষণা করেন। তিনি শ্রমিকদের ন্যায্য অধিকার নিশ্চিত করতে মজুরি কমিশন গঠন করেন এবং নতুন বেতন কাঠামো ঘোষণা করেন। ১৯৭২ সালে মহান মে দিবস উপলক্ষ্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণ দেন। সেই ভাষণে তিনি শ্রমিকদের মজুরির হার বৃদ্ধি এবং যুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্ত ও দুর্দশাগ্রস্ত শ্রমিকদের এডহক সাহায্য প্রদানের ঘোষণা দেন। তিনি পরিত্যক্ত কল-কারখানা জাতীয়করণ করে দেশের অর্থনীতিকে শক্তিশালী এবং শ্রমিকদের ন্যায্য অধিকার নিশ্চিত করেন। জাতির পিতার উদ্যোগে বাংলাদেশ ১৯৭২ সালের ২২ জুন আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) সদস্যপদ লাভ করে।
তীব্র দাবদাহ উপেক্ষা করেও তিতাস গ্যাসের বিভিন্ন জেলা থেকে শ্রমিক কর্মচারীরা এই কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করায় তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।




সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  

ফেসবুকে যুক্ত থাকুন