শুক্রবার, ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
আজ শুক্রবার | ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
Home » Slider »

জিডিস্ট আল-আমিনের পরিবারের পক্ষ হইতে সিংগাইর থানার অফিসার ইনচার্জকে ফুলেল শুভেচ্ছা

মঙ্গলবার, ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ১:০১ পূর্বাহ্ণ | 28Views

জিডিস্ট আল-আমিনের পরিবারের পক্ষ হইতে সিংগাইর থানার অফিসার ইনচার্জকে ফুলেল শুভেচ্ছা

ঢাকা: জিডিস্ট আল-আমিনের পরিবারের পক্ষ হইতে সিংগাইর থানার অফিসার ইনচার্জকে ফুলেল শুভেচ্ছা প্রদান করিয়া থানা পুলিশের প্রতি কৃজ্ঞতা জ্ঞাপন।

গত ২৮/০৮/২০২১ খ্রিঃ সকাল অনুমান ০৯.০০ ঘটিকার পর হইতে ৩১/০৮/২০২১ খ্রিঃ সকাল অনুমান ১০.০০ ঘটিকার পূর্বে যেকোন সময় অজ্ঞাতনামা দুস্কৃতিকারীরা পূর্ব পরিকল্পিতভাবে শিশু শ্রেণীর ছাত্র আল-আমিন (০৭), পিতা-শহিদুল, সাং-বড়বাকা, ইউ.পি-বলধারা, থানা-সিংগাইর, জেলা-মানিকগঞ্জকে সিংগাইর থানাধীন বেরুন্ডি সাকিনের চকে টেমা মিয়ার পরিত্যক্ত ভিটায় (কথিত সাপের ভিটায়) অথবা অন্যকোন স্থানে অজ্ঞাত কারনে শ্বাসরোধ করিয়া বা অন্য কোন উপায়ে হত্যা করতঃ সাক্ষ্য প্রমাণ গোপন করার জন্য আল-আমিনের লাশ প্লাষ্টিকের বস্তায় ভরিয়া লাশ উক্ত ভিটার মাটি গর্ত করিয়া গর্তের ভিতরে চাঁপা দিয়া রাখে।

ডিজিস্ট আল-আমিন (০৭) এর পিতা শহিদুল (৪৭) বাদী হয়ে উক্তরূপ এজাহার দায়ের করেন।

উক্তরূপ এজাহারের প্রেক্ষিতে অফিসার ইনচার্জ সাহেব সিংগাইর থানার মামলা নং-১, তাং-০১/০৯/২০২১ খ্রিঃ ধারা- ৩০২/২০১/৩৪ পেনাল কোড রুজু করেন। প্রকাশ থাকে যে, আল-আমিন তাহার সাইকেল সহ নিখোঁজ মর্মে গত ২৯/০৮/২০২১ খ্রিঃ আল-আমিনের পিতা সিংগাইর থানায় একটি সাধারণ ডায়রী করেন।

নিখোঁজ জিডি হওয়ার সংক্রান্তে অবগত হওয়ার পর হইতেই মানিকগঞ্জ জেলার মাননীয় পুলিশ সুপার জনাব মোহাম্মদ গোলাম আজাদ খান, পিপিএম মহোদয় স্যার বিষয়টিকে অধিকতর গুরুত্ব সাথে বিবেচনা করিয়া অতিঃ পুলিশ সুপার জনাব মোহাম্মদ হাফিজুর রহমান, সিংগাইর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার জনাব মোহাঃ রেজাউল হক, সিংগাইর থানার অফিসার ইনচার্জ সফিকুল ইসলাম মোল্যা-স্যারদের দিক নির্দেশনা প্রদান করেন।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(প্রশাসন ও অপরাধ), সিংগাইর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার ও অফিসার ইনচার্জ এর তত্ত্বাবধানে ইন্সপেক্ট (তদন্ত) জনাব শেখ মোঃ আবু হানিফ, এসআই/মাহফুজ রানা, এসআই মোহাম্মদ জহিরুল হক, এসআই মওদুদ কামাল-সহ অন্যান্য অফিসার ও ফোর্স-গণ তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার ও গুপ্তচর নিয়োগ করে নিখোঁজ আল-আমিনকে উদ্ধারের সর্বাত্মক চেষ্টা করেন।

আল-আমিনকে জীবিত উদ্ধারের চেষ্টকালীন গত ৩১/০৮/২০২১ খ্রিঃ মাটি চাঁপা দেওয়া অবস্থায় আল-আমিন এর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার হওয়া সহ পরবর্তীতে হত্যা মামলা রুজু হয়। সিংগাইর থানা পুলিশ হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত প্রকৃত হত্যাকারীদের শনাক্ত করা সহ তাহাদের গ্রেপ্তারের জন্য তৎপর থাকাকালীন ক্লু-লেছ আল-আমিন হত্যা মামলার রহস্য উদঘাটন করা সহ প্রকৃত অপরাধীদের শনাক্ত করতে সক্ষম হয়। কিন্তু আসামীরা ঘটনার পরেই আত্মগোপনে পলাতক থাকায় তাহাদের গ্রেফতারের লক্ষ্যে একাধিক অভিযানিক টিম প্রেরন করা সহ পুলিশের বিভিন্ন তদন্তকারী সংস্থাকে অবহিত করা হয়।

তারই ফলশ্রুতিতে আল-আমিনের হত্যাকারী রিদয়, নাজমুল ও সাদ্দাম-গণ মামলা রুজুর ০২ দিন পরেই পিবিআই, মানিকগঞ্জ পুলিশ কর্তৃক রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দ মোড় এলাকা হইতে গ্রেফতার হয়। আসামীরা হত্যাকান্ডের দায় স্বীকার করিয়া বিজ্ঞ আদালতে ফৌঃকাঃ বিঃ ১৬৪ ধারা মোতাবেক বিজ্ঞ আদালতে সোপর্দ করেছেন।
আল-আমিন নিখোঁজ হওয়ার পর হইতেই সিংগাইর থানা পুলিশের তৎপরতা ও তৎপরবর্তীতে আল-আমিন হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত প্রকৃত অপরাধীদের শনাক্ত পূর্বক গ্রেফতার হওয়ায় আল-আমিনের পরিবারের সদস্য, আত্মীয়-স্বজন সহ এলাকাবাসী বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর প্রতি সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন এবং অদ্য ০৬/০৯/২০২১ খ্রিঃ ডিজিস্ট আল-আমিন এর পিতা শহিদুল (৪৭), পিতা-মৃত আক্কাস আলী, সাং-বড় বাকা, ইউ.পি-বলধারা, থানা-সিংগাইর, জেলা-মানিকগঞ্জ এবং আল-আমিন এর মামা মিলন হোসেন ঝিলমিল(৩৮), পিতা-আফছার মিয়া, সাং-গোবিন্দল দক্ষিণ পাড়া, থানা-সিংগাইর, জেলা-মানিকগঞ্জ ও পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা সিংগাইর থানায় হাজির হইয়া সিংগাইর থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব সফিকুল ইসলাম মোল্লা ও ইন্সপেক্টর(তদন্ত) জনাব শেখ মোঃ আবু হানিফ-দ্বয়কে ফুলেলে শুভেচ্ছা প্রদান করিয়া কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন।

-Advertisement-
সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  

ফেসবুকে যুক্ত থাকুন

-Advertisement-
-Advertisement-