শুক্রবার, ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ
আজ শুক্রবার | ১৭ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ
Home » Slider »

নাঃগঞ্জ পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে আলোচিত চাঁদমারীর মাদকের স্থানা সহ বস্তি উচ্ছেদ

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধিঃ

বৃহস্পতিবার, ২৯ জুলাই ২০২১ | ১১:৫২ অপরাহ্ণ | 41Views

নাঃগঞ্জ পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে আলোচিত চাঁদমারীর মাদকের স্থানা সহ বস্তি উচ্ছেদ

নারায়ণগঞ্জের বহুল আলোচিত চাঁদমারী বস্তি মাদক স্পট উচ্ছেদ করেছে জেলা পুলিশ। বস্তিটি শহরের সবচে বড় মাদকস্পট হিসেবে পরিচিত ছিলো। বৃহস্পতিবার (২৯ জুলাই) নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার জায়েদুল আলমের নেতৃত্বে ভেকু দিয়ে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালিত হয়। এ বিষয়ে দুপুর ১২টায় ঘটনাস্থলে সাংবাদিকদের ব্রিফিং করেন এসপি। এসময় পুলিশ সুপার বলেন বহুল আলোচিত চানমাড়ি বস্তি যেখানে মাদকের আখরা হিসেবে পরিচিত সেই বস্তি আজ উচ্ছেদ করতে সক্ষম হয়েছি। যারা মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত ছিলেন সেই সকল অপরাধিদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করবো। গত ৯ মে নারায়ণগঞ্জে জেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভায় চাঁনমারী বস্তি উচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। জেলা প্রশাসনের দেয়া আলটিমেটামের মধ্যেই মঙ্গলবার থেকে অনেকে স্বইচ্ছায় নিজেদের ঘর সরিয়ে নেয়। গতকাল বাকী ঘরগুলোও ভেকু দিয়ে ভেঙ্গে দেয়া হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, প্রায় ৫ শতাধিক ঘর ছিলো এই চানমারী বস্তিতে। এখানে শীষ দিয়ে মাদক বিক্রি প্রচলিত ছিলো। প্রশাসনের নাকের ডগায় এ বস্তিতে কয়েক যুগ ধরেই মাদক ব্যবসা চলছিলো। প্রায়ই আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনীর অভিযানও হতো। তবে শত প্রচেষ্টার পরও রহস্যজনক কারণে বন্ধ হয়নি চানমারি বস্তির মাদক ব্যবসা। এই মাদক স্পটের কয়েকশো গজ দুরেই জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয় ও জেলা প্রশাসন কার্যালয় সহ আদালত পাড়া। এই বস্তি উচ্ছেদে বেশ সময় লাগলেও অবশেয়ে প্রশাসনের জোরালো পদক্ষেপে বস্তি উচ্ছেদ হওয়ায় মাদকের অন্যতম ‘বড় আখড়া’ চানমারী বস্তি উচ্ছেদ হওয়ায় আশপাশের লোকজন স্বস্থি প্রকাশ করেছে।

বস্তিবাসীরা জানান, প্রশাসনের কর্মকর্তারা কয়েক দফা এসে বস্তিবাসীকে স্বেচ্ছায় ঘর নিয়ে অন্যত্র চলে যেতে বলেছে। এজন্য মঙ্গলবার বিকেল থেকেই বস্তির প্রায় পাঁচ শতাধীক ঘর নিজেরাই সেচ্ছায় ভেঙ্গে অন্যত্র চলে যাচ্ছি। আর মাদক ব্যবসায়ীদের কারনে অনেক অসহায় পরিবার বস্তি ছারতে বাধ্য হয়েছে। এ বস্তিতে ঝুট ব্যবসায়ী, দিনমজুর, হকার, টোকাইসহ মাদক ব্যবসায়ীরা বসবাস করতেন। বাশের মাচা টিনের চাল ও বেড়া দিয়ে এসব ঘর তৈরি করা হয়। তাই ভেঙ্গে নিতে বেশি সময় লাগেনি। পুলিশের এহেন উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন নারায়ণগঞ্জে সচেতন মহল ও আপামর জনতা।

-Advertisement-
সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  

ফেসবুকে যুক্ত থাকুন

-Advertisement-
-Advertisement-