বুধবার, ২৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আজ বুধবার | ২৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

ভূমি অফিসে হয়রানি ও দুর্নীতি প্রতিবাদ করলে বিভিন্ন হুমকি

রবিবার, ০৭ এপ্রিল ২০২৪ | ৯:৩৫ অপরাহ্ণ

ভূমি অফিসে হয়রানি ও দুর্নীতি প্রতিবাদ করলে বিভিন্ন হুমকি

ভূমি সেবায় দিন দিন হয়রানি ও দুর্নীতি বেড়ে চলেছে যোগসাজশে বাদীপক্ষের নিকট ধার্য তারিখ গোপন রেখে বিবাদীদের অব্যাহতি ও মামলা নথিযাত।

নারায়ণগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জ মৌজাস্থিত সি.এস /এস.এ ২৫১৭ নং দাগের ৩৫ শতাংশ ভূমিতে আয়াতুননেছা মালিক ও ভোগ দখল থাকাবস্থায় মৃত্যুকালে তৎত্যাজ্য বিত্তে মোঃ আমিনুল হক তথায় মাতৃ ওয়ারিশসূত্রে মালিক ও ভোগ দখলকার নিয়ত হয়ে আর্থিক টাকার প্রয়োজন হলে মাতৃ ওয়ারিশসূত্রে প্রাপ্ত সম্পত্তি বিক্রি করার সিদ্ধান্ত নিলে মোরশেদা আক্তার রেখা সেই সম্পত্তি ক্রয় করিতে সহমত হলে বিগত ০৮/০৩/১৯৯৯ ইং তারিখে ২,৩০,০০০/ (দুই লক্ষ ত্রিশ হাজার) টাকা মূল্য ধরে নগদ ৫৫,০০০/- হাজার টাকা গ্রহণ করে মোরশেদা আক্তার রেখা বরাবর বায়না নামায় আবদ্ধ হয় আমিনুল হক।

মোরশেদা আক্তার রেখার নিকট থেকে বায়না নামার পিছনে স্বাক্ষর করে কয়েক বার টাকা গ্রহণ করে আমিনুল হক কিন্তু মোরশেদা আক্তার রেখা বায়নাকৃত সম্পত্তি লিখে দিতে বল্লে বিভিন্ন তালবাহানা করে আমিনুল হক পরবর্তীতে মোরশেদা আক্তার রেখা কবলা সম্পাদন ও রেজিষ্ট্রি করে দেওয়া নিমিত্তে বিজ্ঞ সিনিয়র সহকারী জজ দ্বিতীয় আদালত, নারায়ণগঞ্জ এ দেঃ ২০১/০৫ নং মোকদ্দমা দায়ের করেন যাহা পড়ে বদলী হয়ে সহকারী জজ আড়াই হাজার আদালতে দেঃ ২০৪/০৬ নম্বরে রেজিষ্ট্রিভুক্ত হয়। মামলার বাদি বিগত ২৭/০৮/২০০৬ইং তারিখে রায় ও ০৩/০৯/২০০৬ইং তারিখে ডিক্রি প্রাপ্ত হয়ে দেঃ ডিং ০৪/২০০৬ইং দায়ের করেন এবং বিজ্ঞ সহকারী জজ আড়াই হাজার আদালত, নালিশা সিদ্ধিরগঞ্জ মৌজাস্থিত সি.এস ৬০৭নং, এস.এ ৮০৫নং আর.এস ১০৩১ (সংশোধিত) ৪১৯৮নং খতিয়ানভুক্ত নালিশা সি.এস/এস.এ ২৫১৭ নং তথা আর.এস ৫১১২নং দাগের ৩৫ শতাংশ ভূমি বাদীর অনুকূলে বিগত ০৩/০৯/২০০৭ইং তারিখে ৪৮৭৫ নং সাফ দলিল সম্পাদন ও রেজিষ্ট্রেশন করিয়া দেন। বাদী ৪৮৭৫নং দলিল বলে ৩৫ শতাংশ ভূমির মালিক হয়ে ভোগদখলে থাকাবস্থায় বিগত ০৫/০৬/২০২২ইং তারিখে সহকারী কমিশনার (ভূমি) সিদ্ধিরগঞ্জ রাজস্ব সার্কেল নারায়ণগঞ্জে ১০ শতাংশ ভূমি নামজারী করে খাজনাদি পরিশোধ করার ইচ্ছা পোষণ করলে তদস্থিত কর্মকর্তাগন জানান ১০ শতাংশ ভূমি অন্যত্র নামজারি করে নিয়েছে বিদায় মোরশেদা আক্তার রেখা বরাবর নামজারি খতিয়ান প্রস্তুত করা বা খাজনাদি আদায় গ্রহণ সম্ভব না বলে জানান।

মোরশেদা আক্তার রেখা ১০ শতাংশ ভূমির নামজারী খসড়া উত্তোলন করে দেখতে পায় ১০ শতাংশ ভূমি জাদের নামে নামজারী করা হয়েছে তাদের কাছে মোরশেদা আক্তার রেখা বিক্রি বা হস্তান্তর করেন নাই। জাদের নামে ১০ শতাংশ ভূমি নামজারী করা হয়েছে তাদের নামজারী বাতিল চেয়ে মোরশেদা আক্তার রেখা নামজারী খতিয়ান প্রস্তুত করার লক্ষে সহকারী কমিশনার (ভূমি) এর কার্যালয় সিদ্ধিরগঞ্জ রাজস্ব সার্কেল নারায়ণগঞ্জ এ ১৯/০৬/২০২২ইং মিস মোকদ্দমা দায়ের করেন যাহারা নং ১৬২/২২। বিষয়টি আমলে নিয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) সিদ্ধিরগঞ্জ সার্কেল নারায়ণগঞ্জ, সিদ্ধিরগঞ্জ ইউনিয়ন ভূমি অফিস কর্তৃক তদন্ত প্রতিবেদন পাঠানোর নির্দেশ দিলে সিদ্ধিরগঞ্জ ভূমি অফিস কর্তৃক তদন্ত প্রতিবেদন পাঠাথে গড়িমসি শুরু করে এবং সিদ্ধিরগঞ্জ ইউনিয়ন ভূমি অফিসের কয়েকজন কর্মকর্তার কথার হুমকির শিকার হয় বাদীপক্ষ। পরবর্তীতে বাদীপক্ষ অনেক হয়রানির শিকার হয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ ইউনিয়ন ভূমি অফিসে অনেক আকুতি মিনতি করে বিগত ২৫/০৯/২০২৩ইং সহকারী কমিশনার (ভূমি) এর কার্যালয়ে প্রতিবেদন নিতে সক্ষম হলে বিবাদী পক্ষের আইনজীবী শাহআলম খান উপরোক্ত দেঃ মামলার কাগজ পত্রাদি উত্তলনের জন্য সহকারী কমিশনার (ভূমি) এর কার্যালয়ে বিচারক তানজিম আঞ্জুম সোহানিয়া এর নিকট বিগত ০২/০১/২০২৪ইং সময়ের প্রাথনা করেন।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) সিদ্ধিরগঞ্জ রাজস্ব সার্কেল অফিসে কর্মরত মোঃ রিদয় মোকদ্দমার নাম্বার ও পরবর্তী তারিখ খাতায় এন্ট্রি করার দায়িত্বে আছে মোঃ রিদয় বিভিন্ন ভাবে বাদীপক্ষ থেকে টাকা চাইলে তাঁর সাথে বাদীপক্ষের কথা-কাটাকাটি হলে বাদীপক্ষ তার বিরুদ্ধে সহকারী কমিশনার (ভূমি) সিদ্ধিরগঞ্জ রাজস্ব সার্কেল কানুনগো মোঃ ফারুক আলমের উপস্থিতিতে, তানজিমা আঞ্জুম সোহানিয়ার নিকট বিচার দিলে সে আরও ক্ষিপ্ত হয়ে মামলার পরবর্তী তারিখ গোপন রাখে। বাদীপক্ষ কয়েকবার মামলার তারিখ জান্তে চাইলে সে দেই দিচ্ছি বলে সময় অতিবাহিত করে এদিকে সহকারী কমিশনার (ভূমি) সিদ্ধিরগঞ্জ রাজস্ব সার্কেল তানজিমা আঞ্জুম সোহানিয়া ম্যাডামকে ভুল বুঝিয়ে পরবর্তী ধার্য ০৫/০৩/২০২৪ইং যাহা বাদীপক্ষ অবগত না হওয়ার কারণে বাদীপক্ষ হাজির না হতে পারায় মামলাটি থেকে বিবাদিের অব্যাহতির আদেশ দেন এবং মামলাটি নথি যাত করেন।

বাদীপক্ষ মামলার বিষয়টি নিয়ে কানুনগো মো: ফারুক আলমের নিকট জান্তে চাইলে সিদ্ধিরগঞ্জ রাজস্ব সার্কেল কানুনগো মোঃ ফারুক আলম কোন উত্তর দেন নি। বাদীপক্ষ আরও জানায় আদেশের পূর্বের প্রতি তারিখে স্ব-শরিরে হাজিরা দিয়ে আসছে। গোপন রেখে শুনানির জন্য তারিখ না রেখে মামলাটি নথি যাত করার আসল রহস্য কি এবং বাদীপক্ষ আদেশের নকলের জন্য আবেদন করলে তাকে কয়েকদিন ঘুরিয়ে বলা হয় মামলটির নথি খোঁজে পাওয়া যাচ্ছেনা। পরবর্তীতে বাদীপক্ষের একজন গণমাধ্যম কর্মী পরিচয় দিলে নকলের কপি দেওয়া হয়। এমন কি রহস্য লুকিয়ে আছে এই মোকাদ্দমায় যার করনে আদালতের রায়কেও মানছেনা ভূমি অফিসের কর্মকর্তারা।

বাদীপক্ষের দাবী বিষয়টি অনেকটাই রহস্য জনক তাই আইনের প্রতি শ্রদ্ধা রেখে প্রধানমন্ত্রী ও ভূমি মন্ত্রী সহ প্রশাসকের নজরদারি কামনায় আসল রহস্য খোঁজে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য অনুরোধ জানান।




সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  

ফেসবুকে যুক্ত থাকুন