বুধবার, ২২শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আজ বুধবার | ২২শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বন্দরে যুবতীকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের অভিযোগ

বুধবার, ০৭ অক্টোবর ২০২০ | ৪:৫৪ পূর্বাহ্ণ

বন্দরে যুবতীকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের অভিযোগ

বন্দর প্রতিনিধি: বন্দরে এক যুবতীকে বিয়ে প্রলোভন দেখিয়ে একাধিক বার ধর্ষণ করার অভিযোগ উঠেছে প্রবাস ফেরত যুবক মুন্নার বিরুদ্ধে। দীর্ঘ ৪ বছর ধরে যুবতীর সাথে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলে প্রবাস ফেরত লম্পট মুন্না। এ ঘটনায় থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ লম্পটের বাড়িতে অভিযান চালালে ওই লম্পট মুন্না পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে কৌশলে পালিয়ে যায়। এ ব্যাপারে ধর্ষিতা যুবতী বাদী হয়ে গত ৪ অক্টোবর রোববার বাদী হয়ে বন্দর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।

 অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, বন্দরের মুছাপুর মিনারবাড়ি ডুমুরতলা এলাকার হাফিজুল মিয়ার ছেলে মুন্না বন্দরের বাড়িখালী এলাকার আঃ করিম মিয়ার যুবতী কন্যার সাথে মোবাইলে সম্পর্ক গড়ে প্রেমের ফাাঁদে ফেলে বিয়ে প্রলোভন দেখিয়ে একাধিক বার ধর্ষন করে। কিছু দিন পরে সে চাকুরী নিয়ে সৌদী আরক চলে যায়। সৌদী থেকেও যুবতীর সাথে সম্পর্ক রাখে। সম্প্রতি বিদেশ থেকে এসে যুবতীকে মোবাইল ফোন উপহার দেয়। পরে তাকে নিয়ে কক্সবাজর বেড়াতে যায়। সেখানে গিয়ে হোটেলে রেখে কয়েক দিন ধর্ষণ করে। এর পর সোনারগাঁয়েও হোটেলে রেখে এবং যুবতীর বাড়িতেও এসেও সকলের অগচোরে যুবতীকে ধর্ষণ করে। পরে যুবতী তাকে বিয়ে জন্য চাপ দিলে সে বেঁকে বসে এবং বিয়ে করতে অস্বীকার করে। কয়েক দিন আগে সে যুবতীর বাড়িতে তার ভগ্নীপতিসহ কয়েকজনে মিলে যুবতীকে তার বাড়িতে গিয়ে মারধর করে চলে আসে। এ ঘটনায় গত রবিবার যুবতী থানায় গিয়ে অভিযোগ দায়ের করলে পুলিশ লম্পট মুন্নার বাড়িতে হানা দেয়। এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মুন্না পালিয়ে যায়। এ ব্যপারে বন্দর থানার এসআই শামীম জানান, যুবতীর অভিযোগ পেয়ে মুন্নার বাড়িত গিয়ে তাকে পাওয়া যায়নি। যুবতী মামলা দিয়ে আমরা আইনগত ব্যবস্থা নেব।




সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  

ফেসবুকে যুক্ত থাকুন