বৃহস্পতিবার, ১৮ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩রা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আজ বৃহস্পতিবার | ১৮ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

শহরে ঢুকছে না মৌমিতা, চিরচেনা শহর ফাঁকা : নেই ভোগান্তির যানজট

মঙ্গলবার, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ | ৫:৩২ পূর্বাহ্ণ

শহরে ঢুকছে না মৌমিতা, চিরচেনা শহর ফাঁকা : নেই ভোগান্তির যানজট

নারায়ণগঞ্জ শহরের প্রাণকেন্দ্র চাষাড়া চত্বরে যানজটের অনেকগুলো কারনের মধ্যে অন্যতম কারন ছিল মৌমিতা পরিবহনের অবৈধ গাড়ি পার্কিং। চাষাড়া চত্বরের খাজা মার্কেট, শহীদ মিনারের সামনে ও শান্তা মার্কেটের সামনে রাস্তার উপরে সাড়ি সাড়ি মৌমিতা পরিবহন অবৈধভাবে পার্কিং করে যাত্রী উঠানামা করতো। ফলে চাষাড়া চত্বরে বেশীরভাগ সময়ই যানজটে ভোগান্তিতে পড়ছে হয়ে সাধারণ মানুষকে।
তবে বিগত দুদিন ধরে দেখা যাচ্ছে না চাষাড়া চত্বরের যানজটের মূলহোতা মৌমিতা পরিবহনকে। ফলে চাষাড়া চত্বর পুরোই ফঁাকা নেই দৈনন্দিন জীবনের চিরচেনা যানজট। এতে করে দুদিন যাবৎ স্বত্বিতে শহরে চলাচল করছে সাধারণ মানুষ।
সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শহরের চাষাড়া চত্বরের পুরো আশপাশ জুড়েই ছিলো ফঁাকা। চোখে পড়েনি মৌমিতা পরিবহনের কোনো একটি গাড়ি। নেই দৈনন্দিন জীবনের চিরচেনা যানজট। স্বাভাবিক ভাবেই চলাচল করছে যানবাহন গুলো। ট্রাফিক পুলিশ দায়িত্ব পালন করছেন। চাষাড়া চত্বরের আশপাশে কোনো যানবাহনকে অবৈধভাবে পার্কিং করতে দিচ্ছে না। আর ঢাকাগামী বাস গুলো নিয়ম মেনে চাষাড়া চত্বরে যাত্রী উঠানামা করছে।
জানাগেছে, গত শনিবার (৩ ফেব্রুয়ারি) নারায়ণগঞ্জ প্রেসক্লাবের আয়োজনে শহরের যানজট ও ফুটপাত দখল সমস্যা সমাধানে এক গোল টেবিল বৈঠকের আয়োজন করা হয়েছিল।
সেই গোল টেবিল বৈঠকে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী চরম ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেছিলেন, মৌমিতা অবৈধভাবে চাষাঢ়া দিয়ে কেন চলবে। কেন তাদের রোড পারমিট বাতিল করা হচ্ছে না।
আমরা যারা উপস্থিত আছি, তারা সবাই কি একমত হতে পারি, মৌমিতা নারায়ণগঞ্জে চলতে দেওয়া যাবে না। আমাদের শহরেই তো নারায়ণগঞ্জের অনেক বাস আছে। সেগুলোরই ঠিকভাবে পারমিশন দিতে পারি না, চলতে পারে না। পুরো শহর বাসের নগরী।
তাহলে কেন আরেক জায়গা থেকে আরেক জন এসে নিজেদের বাসগুলো এভাবে চালাবে। প্রচন্ড দাপটের সাথে শহীদ মিনারের চারপাশে বাস রেখে দিবে। যানজট তারা তৈরী করবে। নির্বিকারে আমরা শুধু দেখবো আর বলবো রাস্তা বড় করতে হবে, ডিভাইডার ভেঙে দিতে হবে।
আর গোল টেবিল বৈঠকে নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাহমুদুল হক বলেছিলেন, আমি প্রকাশ্যে ঘোষণা করছি, আগামীকাল থেকে আমি গাড়ি ডাম্পিংয়ে দেওয়া শুরু করবো। আগামীকাল থেকে রুট পারমিট ছাড়া গাড়ি দেখলেই ডাম্পিংয়ে দিয়ে দেব। রুট পারমিট ছাড়া কোনো গাড়ি নারায়ণগঞ্জে ঢুকবে না।
এদিকে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী ও জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ মাহমুদুল হকের এমন বক্তব্যের পর থেকে শহরে ঢুকছে না মৌমিতা পরিবহন। রবিবার ও সোমবার এদুদিন মৌমিতা পরিবহনের কোনো বাস শহরে প্রবেশ করেননি।
এবিষয়ে নারায়ণগঞ্জ বিআরটিএর সহকারী পরিচালক ( ইঞ্জিঃ ) মো. শামসুল কবীর জানান, আমাদের কাছে মৌমিতা পরিবহনের অনুমোদন রয়েছে ৭৮টি গাড়ির। এই অনুমোদন তারা ঢাকা বিআরটিএর থেকে নিয়েছে সাইনবোর্ড পর্যন্ত। আর মৌমিতা পরিবহন মোট গাড়ি রয়েছে শতাধিকের উপরে। আমরা বিভিন্ন সময়ে অভিযান চালিয়ে অর্থদণ্ডও করেছি।




সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  

ফেসবুকে যুক্ত থাকুন