বৃহস্পতিবার, ১৮ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩রা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আজ বৃহস্পতিবার | ১৮ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

সিদ্ধিরগঞ্জে মাদক ব্যবসায়ী জসিম ও রানার নিত্যপণ্যের মতো নির্বিঘ্নে বিক্রি হচ্ছে মাদক!

শুক্রবার, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ | ৮:২৩ অপরাহ্ণ

সিদ্ধিরগঞ্জে মাদক ব্যবসায়ী জসিম ও রানার নিত্যপণ্যের মতো নির্বিঘ্নে বিক্রি হচ্ছে মাদক!

স্টাফ রিপোর্টার: সিদ্ধিরগঞ্জের একাধিক মামলার আসামি, পেশাধার ছিনতাইকারী ও চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ি জসিমের মাদক আদান-প্রধান নিয়ন্ত্রণ করছে তার সহযোগী একাধীক মাদক মামলার আসামি মাদক ব্যবসায়ী রানা ওরফে ইয়াবা রানা নামে পরিচিত। এরা দীর্ঘদিন যাবৎ ধরে করে আছসে এ মাদক ব্যবসা।

নাসিক ১নং ওয়ার্ডের সিদ্ধিরগঞ্জের পুলের দক্ষিন পাশে মৃত নওয়াব আলীর ছেলে মাদক ব্যবসায়ী রানার বাড়িতে দির্ঘদিন যাবৎ চলে চিহিৃত মাদক ব্যবসায়ী জসিমের রমরমা মাদক ব্যবসা, জুয়ার আসর ও মাদক সেবন।

এছাড়াও এর আগে এই বাড়িতে মাদক ব্যবসায়ী জসিম, রানা, সালামসহ আরো অনেকেই থানা পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয়। পরে তারা জামিনে এসে আবারো শুরু করে মাকদ কেনা-বেচা।

বিশেষ করে মাদকের ছোবলে তরুণ যুব সমাজ ধ্বংসের মূখে পতিত হলেও মাদক ব্যবসায়ীরা আরো প্রতিযোগীতা দিয়ে চালাচ্ছে মাদক ব্যবসা।

তবে স্থানীয় কয়েকজন বাসিন্দারা জানান, ডিবি ও পুলিশের কয়েকজন সোর্সের সাথে তাদের সক্ষতার কারনে এসব মাদক ব্যবসায়ীদের গ্রেফতার করতে ব্যর্থ হচ্ছে বলে মনে করছেন এলাকাবাসী।

গত (১ ফেব্রুয়ারি দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে মিজমিজি টিসি রোড এলাকা থেকে বিদেশী একটি চাকু (সুইচ গিয়ার) ও ছিনতাইকৃত দুটি মোবাইল ফোনসহ জসিমকে গ্রেফতার করে থানা পুলিশ।

এছাড়াও নাসিক নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনোয়ার ইসলামের কার্যালয়ে হামলায় মামলার আসামী, নারী কেলেঙ্কারি, ধর্ষণের অভিযোগ, হামলা,ভাংচুর ও হত্যার অভিযোগসহ চাঁদাবাজী মামলাসহ বিভিন্ন অপরাধের মামলা রয়েছে পেশাদার ছিনতাইকারী ও শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী জসিমের বিরুদ্দে।

জসিম সাবেক আদমজী জুটমিলের শ্রমিক দল নেতা আবু সাঈদের ছেলে। বর্তমানে সিদ্ধিরগঞ্জ থানাধীন নাসিক নম্বর ওয়ার্ড এর মিজমিজি পাগলাবাড়ি এলাকায় বসবাস করছে।

সচেতন মহল মনে করছেন, আইনশৃংখলা বাহিনী ছোট- ছোট কিছু মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করলেও রহস্যজনক কারণে অধরা ধরা ছোঁয়ার বাইরে রাঘববোয়াল।

মাদক ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন কৌশলে বীরদর্পে করছে মাদক ব্যবসা। তাদের ফোন করলেই পৌছে দেয় সব ধরনের মাদক।

ছিনতাইকারী, কিশোরগ্যাং বাহিনী সহ বিশাল সংঘবদ্ধ সিন্ডিকেট রয়েছে তাদের।

অন্যদিকে আইয়েশেই চালছে রানার বাড়িতে জসিমের মাদক ব্যবসা, চুরি, ছিনতাই, মারামারী, মাদক সেবন, জুয়া ও নারীনিয়ে ফুর্তী।

যতবারই তারা গ্রেফতার হয়েছে কিছুদিন পর আদালত থেকে জামিনে বের হয়ে অভিনব কৌশলে সিদ্ধিরগঞ্জের পাড়া-মহল্লায় ও অলিতে-গলিতে অবাধে চালিয়ে যাচ্ছে মাদক ব্যবসাসহ বিভিন্ন অপরাধ কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে।

কথিত কিছু সোর্সসহ এদের একটি সিন্ডিকেট তৈরী করে এ মাদক ব্যবসাটি চালিয়ে আসছে বলে বিভিন্ন সূত্রে জানায়। তারা শক্তিশালী একটি সঙ্গবদ্ধ সিন্ডিকেট গড়ে তুলে, যার ফলে ধ্বংস হচ্ছে যুবসমাজ, বৃদ্ধি পাচ্ছে এলাকায় মারামারী রক্তক্ষয়ী সংঘর্স, ছিনতাই, চুরি, দর্ষণ’সহ সামাজিক অপরাধ।

তবে রহস্যজনক কারনে স্থানীয় কিছু বড় ভাইয়েরা দেখলেও কিছু সুবিধা পেয়ে না দেখার বাহানা করে, যেমন- তাদের কথা শুনা, কোন সমস্যা হলেই ডাকদিলেই পাওয়া যায়, মিটিং, মিছিল, আবার কিছু বড় ভাইদের সেবনের জন্য ফ্রি পাওয়া, কেও মানতিও খায়, (মানে প্রতিদিন কিছু খরচ) স্থানীয়দের এ-ই অবস্থা দেখে কোনঠাসা হয়ে একখ নিরব বসবাসকারীরা, যারা এখানে এসে বাড়ী-ঘর করে বসবাস করছে।

বসবাসকারী নিরীহ জনসাধারণ প্রশাসনের প্রতি হস্তক্ষেপ কামনা করছেন। সুষ্ঠ ও সঠিক তদন্ত করে এই ছিনতাইকারী, চোর, ও মাদক ব্যবসায়ীদের, বিষাক্ত ছোবল থেকে যুবসমাজকে রক্ষা করতে এসব মাদক ব্যবসায়ী ও তার মদদ দাতাদের বিরদ্ধে আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করার অনুরোধ জানান র‍্যাব-১১ ও নারায়নগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার এবং সিদ্ধিরগঞ্জ থানা ওসি হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।




সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  

ফেসবুকে যুক্ত থাকুন