বৃহস্পতিবার, ১৮ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩রা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
আজ বৃহস্পতিবার | ১৮ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

রাজধানী কদমতলী আওয়ামী লীগ নেতাকে হত্যা চেস্ঠা ও ডাকাতি মামলার আসামী র‍‍্যাবের হাতে আটক।

সোমবার, ২৯ জানুয়ারি ২০২৪ | ১১:৩২ অপরাহ্ণ

রাজধানী কদমতলী আওয়ামী লীগ নেতাকে হত্যা চেস্ঠা ও ডাকাতি মামলার আসামী র‍‍্যাবের হাতে আটক।

শরীফ আহমেদ প্রতিবেদনঃ

রাজধানীর কদমতলী থানাধীন ডিএসসিসি ৬৫ নং ওয়ার্ড অন্তর্গত তুষার ধারা ইউনিট আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল আমিন মোল্লার উপড় আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে হামলা চালনো প্রধান অভিযুক্ত নোমান বেপারী (২৭) কে হত্যা ও ডাকাতি মামলায় গ্রেফতার করেছে র‍‍্যাব-১১। রবিবার ২৮ জানুয়ারি গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে ফতুল্লা থানার শান্তিধারা এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। নোমান বেপারী ওই এলাকার আব্দুর রব বেপারীর ছেলে।

তুষার ধারা ইউনিট আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল আমিন মোল্লা দৈনিক নারায়ণগঞ্জের ডাককে বলেন, সন্ত্রাসী নোমান বেপারী তার সঙ্ঘবদ্ধ একটি গ্রুপ নিয়ে তুষার ধারা এলাকায় মাদক ব্যবসা, চাঁদাবাজি ভূমিদস্যুতা সহ নানা অপরাধের স্বর্গ রাজ্য গড়ে তোলেন, তার এসব অপকর্মে বাধা দেওয়ায় গত ২২ জানুয়ারি অভিযুক্ত ৬ জনসহ অন্য ৫/৬ জন অজ্ঞাত ব্যক্তি মিলে দুপুর তিনটার দিকে গিরিধারা আবাসিক এলাকার শাপলা টাওয়ারের সামনে নোয়াখালী হোটেলের ভিতরে আমার উপর আগ্নেয়াস্ত্র (পিস্তলের বাট দিয়ে আঘাত করে) মারধর করেন। এই বিষয়ে আমি কদমতলী থানায় সাত জনের নামে ও ৫/৬ জনকে অজ্ঞাত দেখিয়ে একটি অভিযোগ করেছি। অভিযুক্তরা হল, নোমান বেপারী পিতা আব্দুর রব বেপারী, আলামিন পিতা -বাবু, মাসুদ ওরফে ন্যারো মাসুদ, আল ইমরান, তামিম, ওমর ফারুকসহ অজ্ঞাত ৫-৬ জন। কদমতলী থানার এসআই জহিরুল ইসলাম অভিযোগ তদন্ত করেন।

তিনি আরো বলেন, গিরিধারা এলাকাটি নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থানা এবং ডিএমপির কদমতলী থানার সীমান্তবর্তী এলাকা হওয়ায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ঢিলেঢালা তৎপরতার কারণে সহজে অপরাধ কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছিল।

প্রত্যক্ষদর্শী ফয়সাল আহমেদ রাজু বলেন, ঘটনার দিন এলাকার সন্ত্রাসী নোমান বেপারী সাত আটটি মোটরসাইকেল যোগে এসে ১০-১২ জন ব্যক্তি মিলে হোটেলের ভেতরে আওয়ামী লীগ নেতা আল আমিন মোল্লার উপর অতর্কিত হামলা চালায়।

চাঁদপুর হোটেলের কর্মচারী শাহ আলম সাংবাদিকদের বলেন, অভিযুক্তরা আলামিন মোল্লাকে এলোপাথাড়ি মারধর করতে থাকেন, তাদের কাছে দেশী ধারালো অস্ত্রশস্ত্র থাকায় আমরা ভয়ে তটস্থ হয়ে পড়ি। কদমতলী থানার এসআই জহিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, অভিযোগের পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি, আশেপাশের সিসিটিভির ফুটেজ গুলো সংগ্রহ করে পর্যবেক্ষণ করছি, অভিযুক্তদের ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এই ঘটনায় এলাকায় থমথমে পরিবেশ বিরাজ করছে।সন্ত্রাসীরা আল আমিন মোল্লাকে প্রাণনাশের হুমকি-ধমকি দিচ্ছেন বলেও জানান তিনি। এ বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদয় হস্তক্ষেপ ও জীবনের নিরাপওা কামনা করেছেন তুষার ধারা ইউনিট আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আল আমিন মোল্লা।




সর্বশেষ  
জনপ্রিয়  

ফেসবুকে যুক্ত থাকুন